1. noorazman152@gmail.com : নূর আজমান : নূর আজমান
  2. asifiqballimited@gmail.com : Asif Iqbal : Asif Iqbal
  3. khansajeeb45@gmail.com : সজিব খান : সজিব খান
  4. naeemnewsss@gmail.com : সাকিব আল হেলাল : সাকিব আল হেলাল
  5. khoshbashbarta@gmail.com : ইউনুছ খান : ইউনুছ খান
বরুড়ার আলোকিত মানুষ এম.এ কাদের এর ২১তম প্রয়াণ দিবস - খোশবাস বার্তা
রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০৯:২৫ পূর্বাহ্ন
খোশবাস বার্তা

বরুড়ার আলোকিত মানুষ এম.এ কাদের এর ২১তম প্রয়াণ দিবস

ইউনুছ খান
  • প্রকাশিতঃ রবিবার, ২০ মার্চ, ২০২২
  • ৩৬৭ বার পঠিত

অসংখ্য জ্ঞানী-গুনীর পুণ্যস্মৃতি বিজড়িত বরুড়া উপজেলা। এ উপজেলায় অনেক জ্ঞানী-গুনী ও প্রখ্যাত ব্যক্তি/মণিষীর জন্মস্থান। যারা তাদের কৃতকর্মের জন্য বরুড়া বাসী তথা দেশবাসীর নিকট চিরঅমর হয়ে থাকবে।

বরুড়া উপজেলার প্রয়াত আলোকিত মানুষ এম.এ কাদের। তিনি তাঁর সততা, দক্ষতা, যোগ্যতা, দেশপ্রেম, ত্যাগের মহিমা ও নৈতিকতার মাধ্যমে বরুড়া উপজেলা বাসীকে এগিয়ে নিতে অমরত্বের বীজ বপন করে যান। আজ ২০ মার্চ রবিবার আড্ডা ডিগ্রি কলেজ ও এস কিউ গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত এম.এ কাদের এর ২১তম মৃত্যুবার্ষিকী।

১৯৩১সালে কুমিল্লা জেলাধীন বরুড়া উপজেলার আড্ডা গ্রামের সম্ভান্ত মুসলিম পরিবারে তাঁর জন্ম। তাঁর বাবা হাজী মধু মিয়া ও মা হাসমতেন্নেছা। ১৯৫২ সালে পেরপেটি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মেট্রিক, ১৯৫৪ সালে চাঁদপুর সরকারি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক এবং কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ থেকে সম্মানের সহিত বি. কম পাশ করেন। শিক্ষা জীবনের পাঠ চুকিয়ে তিনি ব্যবসায়ী হওয়ার স্বপ্ন দেখেন সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে তিনি ষাটের দশকের শুরুতে ঠিকাদারি ব্যবসা শুরু করেন এবং নীজ উদ্যোগে এম.এ কাদের লিমিটেড ও টেকনো ইলেকট্রিক্যালস লিমিটেড প্রতিষ্ঠা করেন। এলাকার মানুষের চিকিৎসা সেবার জন্য আড্ডা হাসপাতালের জন্য জমি দান করেন এবং শিক্ষার উন্নয়েনের জন্য ১৯৯৪ সালে আড্ডা ডিগ্রি কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন। ধর্মীয় শিক্ষার অগ্রগতির জন্য আল আমিন কমপ্লেক্স স্থাপন সহ চাচার প্রতিষ্ঠিত বোয়ালিয়া বাতেনিয়া ফাজিল মাদ্রাসার উন্নয়নে আর্থিক অনুদান প্রদান করেন। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে তাঁর বাড়িতে মুক্তিযোদ্ধারা ঘাঁটি স্থাপন করেন এবং সেই সময় তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের ব্যাপক সহযোগিতা করেন এবং তাঁর বাড়িতে আশ্রয় দেন।

তিনি আড্ডা ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চলে সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের কাছে কাদের ভাই হিসেবে পরিচিত ছিলেন। ৯০ বছরের বর্ণাঢ্য জীবনে সমাজ ও দেশের জন্য নিজের ভোগবিলাসী জীবন ত্যাগ করে সমাজের সর্বস্তরের মানুষের উন্নয়ন ও গ্রামীণ পরিবেশে শিক্ষার উন্নয়নে অগ্রদূত হিসেবে আমৃত্যু কাজ করে গেছেন। তিনি যখনই যে কাজ করেছেন নিজের দায়িত্ব কর্তব্য ভেবেই করেছেন।আলোকিত মহৎপ্রাণ এম.এ কাদের জীবনে যখন যেটাই করতে চেয়েছিলেন সেটাই নীজ আত্মবিশ্বাসে করতে পেরেছিলেন এবং তিনি সফলও হয়েছিলেন। পারিবারিক জীবনে তিন ছেলে ও এক কন্যা সন্তানের জনক ছিলেন তিনি। কর্মময় ভুবনের ব্যস্ততার মাঝেও তিনি তাঁর চার জন সন্তান কে সেই সময় সুশিক্ষিত করে গিয়েছিলেন বর্তমানে তাঁর সন্তানেরা নীজ প্রতিষ্ঠিত এস কিউ গ্রুপে নানান পদে কর্মরত আছেন এবং সবাই নীজ নীজ শিক্ষা-দীক্ষায় সুপ্রতিষ্ঠিত হয়েছেন।

তাঁর প্রতিষ্ঠিত এস কিউ গ্রুপের চেয়ারম্যান এ জেড সফিউদ্দিন বরুড়া তথা দেশবাসীর কল্যাণে এম এ কাদের এর সংক্ষিপ্ত নামানুসারে এস কিউ ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠিত করেন। করোনাকালীন সময়ে বরুড়ার সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের জন্য অক্সিজেন সেবা সহ প্রচুর আর্থিক অনুদান প্রদান করেন।

২০০১ সালের ২০ মার্চ তাঁর অসংখ্য গুণগ্রাহীকে কাঁদিয়ে ভারতের মাদ্রাজ হসপিটালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

খোশবাস বার্তা

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

অনলাইন জরিপ

চামড়াশিল্পের চিহ্নিত সমস্যাগুলো সমাধানে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে মনে করেন কি?

ফলাফল দেখুন

Loading ... Loading ...
corona safety
সত্বাধিকার © খোশবাস বার্তা ২০১৬- ২০২১
ডেভেলপ করেছেন : TechverseIT
themesbazar_khos5417