1. noorazman152@gmail.com : নূর আজমান : নূর আজমান
  2. asifiqballimited@gmail.com : Asif Iqbal : Asif Iqbal
  3. khansajeeb45@gmail.com : সজিব খান : সজিব খান
  4. naeemnewsss@gmail.com : সাকিব আল হেলাল : সাকিব আল হেলাল
  5. khoshbashbarta@gmail.com : ইউনুছ খান : ইউনুছ খান
৫০০ কিলোমিটার পথ ১৭ দিনের নবজাতক সন্তান কে নিয়ে পাড়ি দিলেন পায়ে হেঁটে এক মা! - খোশবাস বার্তা
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১১:১৪ পূর্বাহ্ন
খোশবাস বার্তা

৫০০ কিলোমিটার পথ ১৭ দিনের নবজাতক সন্তান কে নিয়ে পাড়ি দিলেন পায়ে হেঁটে এক মা!

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিতঃ সোমবার, ১১ মে, ২০২০
  • ৪৮০ বার পঠিত
khosbasbarta

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আটকাতে আচমকাই দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। গত ২৪ মার্চ থেকে তিন দফায় ১৭ মে পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। যার ফলে বন্ধ সমস্ত যান চলাচল। পরিযায়ী শ্রমিকেরা নিজেদের বাড়ি ফিরতে না পারায় বিভিন্ন রাজ্যে অশান্তিও ছড়িয়েছে একাধিকবার। পথেই মৃত্যু হচ্ছে বহু মানুষের। আর এরই মধ্যেই সামনে এল আরেক মর্মান্তিক কাহিনি। করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত মুম্বইয়ে সন্তান জন্ম দেওয়ার পর বাড়ি ফিরতে কোনও গাড়ি পাননি এক মা। ফলে পরিযায়ী শ্রমিকদের মতো তিনিই বাড়ি ফিরছেন পায়ে হেঁটেই।
মাত্র ১৭ দিন আগে সন্তানের জন্ম দেওয়া ওই মা থাকেন মুম্বই থেকে প্রায় ৫০০ কিলোমিটার দূরের বিধর্ভ এলাকায়। কিন্তু হাসপাতাল থেকে তাঁকে একটা গাড়িও বন্দোবস্ত করে দেওয়া হয়নি বাড়ি ফেরার জন্যে। তাঁর পরিবারের লোকেরাও পারেননি লকডাউনের মধ্যে গাড়ির ব্যবস্থা করতে। ফলে পায়ে হেঁটেই বাড়ি ফিরছেন মা ও তাঁর ১৭ দিনের সন্তান।
ওই মা ও তাঁর সন্তান করোনা আক্রান্ত হননি। তাঁদের পরীক্ষা করা হয়েছিল বটে, কিন্তু রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। এই পরিস্থিতিতেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও তাঁদের একটা গাড়ির বন্দোবস্ত করে দেয়নি। মুম্বই পুলিশের কাছে নিজেদের গাড়িভাড়া করার জন্য অনুরোধ করা হলেও সেই অনুমতি মেলেনি।
পায়ে ফোস্কা পড়ে গিয়েছে মহিলার। কোলে ১৭ দিনের সন্তান। খাবারও নেই। তবু, সন্তানকে নতুন পৃথিবী দেখাতে পথ হাঁটছেন কোনও এক ‘মাদার ইন্ডিয়া’।

খোশবাস বার্তা

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

অনলাইন জরিপ

চামড়াশিল্পের চিহ্নিত সমস্যাগুলো সমাধানে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে মনে করেন কি?

ফলাফল দেখুন

Loading ... Loading ...
corona safety
সত্বাধিকার © খোশবাস বার্তা ২০১৬- ২০২১
ডেভেলপ করেছেন : TechverseIT
themesbazar_khos5417